Secrets of Anti-Aging | তারুণ্যদীপ্ত ত্বক পেতে কার্যকরী হোম রেমেডি

যে কোনো ছেলে বা মেয়েই তার বিশের কোঠায় বৃদ্ধ হতে চায় না। বয়স ধরে রাখার জন্য মানুষের কতই না চেষ্টা। নানা কারণে অনেকেরই অল্প বয়সেই ত্বকে বয়সের ছাপ পড়ে। সেই ছাপ রোধ করতে না বুঝে স্কিনে ব্যবহার করা হয় নানা ধরনের প্রোডাক্ট। এতে হিতে বিপরীত হয়ে যায়। বয়সের ছাপ তো দূর হয় না বরং ত্বকের বেশি ক্ষতি হয়। আজকের আর্টিকেলে আমরা জানবো ত্বকে বয়সের ছাপ কেন পড়ে, অ্যান্টি এজিং ইনগ্রেডিয়েন্টস কোনগুলো এবং অসময়ে এজিং রোধের ঘরোয়া প্যাকগুলো নিয়ে।

অসময়ে এজিং এর কারণ

সময়ের আগেই এজিং এর বেশ কয়েকটি কারণ রয়েছে। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য কারণগুলো হচ্ছেঃ

  • সূর্যের ক্ষতিকর রশ্মি,
  • অতিরিক্ত ডায়েট,
  • অ্যালকোহল,
  • ধূমপান,
  • স্ট্রেস ইত্যাদি।

Shop at Saajkonna.com

১) ভিটামিন সি

ভিটামিন সি ত্বকের জন্য একটি অপরিহার্য উপাদান। কমলালেবু, মাল্টা, স্ট্রবেরি ইত্যাদি ভিটামিন সি সমৃদ্ধ। এই ফলগুলো আপনার প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় যোগ করুন। বার্ধক্য রোধ করতে ভিটামিন সি সিরামও ব্যবহার করতে পারেন। ভিটামিন সি ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াবে এবং ত্বকের বলিরেখা রোধ করবে।

২) নিয়াসিনামাইড

অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ত্বককে কোমল ও ময়েশ্চারাইজড রাখতে বেশ কার্যকরী। নিয়াসিনামাইড ত্বকের বিভিন্ন কালো দাগ, লালভাব দূর করে উজ্জ্বল করে। বাজারে বিভিন্ন স্কিন কেয়ার পণ্যে নিয়াসিনামাইড থাকতে পারে। বেশ কিছু ফাউন্ডেশনেও নিয়াসিনামাইড থাকে।

৩) রেটিনল

ত্বকের বলিরেখা ও সূক্ষ্ম রেখা দূর করতে রেটিনল একটি গুরুত্বপূর্ণ উপাদান। ত্বকের বিভিন্ন কালো দাগ দূর করতে এটি বেশ কার্যকরী। আপনার ত্বকের ধরন অনুযায়ী যেকোনো একটি সিরাম বেছে নিন। আপনার ত্বকের যত্নে যদি সিরাম থাকে তবে আপনাকে অবশ্যই দিনের বেলা সানস্ক্রিন ব্যবহার করতে হবে।

৪) কোলাজেন

বেশিরভাগ স্কিন কেয়ার প্রোডাক্টে কোলাজেন থাকে। কোলাজেন ত্বকের সূক্ষ্ম রেখা এবং বলিরেখা দূর করে। কোলাজেন আসলে একটি প্রাকৃতিক প্রোটিন যা মানবদেহে তৈরি হয়, এবং অঙ্গ-প্রত্যঙ্গের সুস্থতায় ভূমিকা রাখে। এটি ত্বককে সতেজ ও প্রাণবন্ত রাখে। যার কারনে বয়সের ছাপ দেখা যায় না। তাই আপনার ত্বকের যত্নের রুটিনে কোলাজেন সমৃদ্ধ প্রোডাক্ট অবশ্যই রাখুন।

৫) হায়ালুরোনিক অ্যাসিড

হায়ালুরোনিক অ্যাসিড ত্বকে বলিরেখা প্রতিরোধ করার অন্যতম কার্যকর উপায়। ত্বকের বলিরেখা দূর করতে হাইলুরোনিক অ্যাসিড যুক্ত সিরাম বা ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করা উচিত। এটি ত্বককে কোমল করবে এবং বলিরেখামুক্ত ত্বক দেবে।

৬) গ্রিন টি

গ্রিন টি এর অনেক উপকারিতা রয়েছে। গ্রিন টি ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়ার পাশাপাশি ত্বকের বলিরেখা দূর করে।

Shop at Saajkonna.com

অ্যান্টি এজিং স্কিন কেয়ারে ঘরোয়া কয়েকটি ফেইস প্যাক

কিছু ঘরে তৈরি ফেসপ্যাক দিয়ে ত্বকের বলিরেখা ও ফাইন লাইন রিমুভ করা সম্ভব। চলুন জেনে নেই, অ্যান্টি এজিং স্কিন কেয়ারে রাখা যায় এমন কয়েকটি ফেইসপ্যাক নিয়ে।

১) শশা ও অ্যালোভেরা

ত্বক হাইড্রেটেড রাখতে শসা ও অ্যালোভেরার জুড়ি মেলা ভার। এই দুটি উপাদান ত্বকের রুক্ষতা দূর করে ত্বকে উজ্জ্বলতা আনে।

ফেইসপ্যাক তৈরি করার জন্য যা যা লাগবে

  • শশা,
  • ২ টেবিল চামচ টকদই,
  • অ্যালোভেরা জেল,
  • লেবুর রস।

যেভাবে তৈরি করবেন 

  • টকদই, অ্যালোভেরা জেল এবং লেবুর রস একসঙ্গে মিশিয়ে নিন,
  • শশা কুচি করে মিশ্রণের মধ্যে দিয়ে দিন,
  • প্যাকটি মুখে ভালো করে লাগিয়ে নিন,
  • শুকিয়ে গেলে ঠান্ডা পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন।

Shop at Saajkonna.com

২) ডিম ও মধু

ডিম চুলের পুষ্টি জোগায়, এটা প্রায় সবারই জানা, কিন্তু অনেকেই জানেন না যে ডিম ত্বকের জন্যও ভালো কাজ করে। ডিম এবং মধু দুটোই বার্ধক্য রোধে কার্যকরী উপাদান। ডিম ত্বককে টানটান করে, ত্বক ঝুলে যাওয়া থেকে রক্ষা করে। আর মধু ত্বককে ময়েশ্চারাইজ করবে।

এ দুই উপাদান দিয়ে প্যাক বানাতে যা যা লাগবে

  • ডিমের কুসুম,
  • ২ টেবিল চামচ মধু।

যেভাবে তৈরি করবেন 

  • ২ টেবিল চামচ মধু এবং ২-৩ ফোঁটা পানিতে একসাথে মিশিয়ে নিন,
  • ডিমের কুসুম বিট করে মধু পানির মিশ্রণে দিয়ে দিন,
  • এই প্যাকটি স্কিনে ব্যবহার করুন,
  • তারপর শুকিয়ে গেলে ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

৩) হলুদ ও টকদই

হলুদে রয়েছে অ্যান্টি-সেপটিক, অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল, অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি উপাদান যা ত্বকের বিভিন্ন সংক্রমণ দূর করে। টক দইয়ে রয়েছে কার্বোহাইড্রেট, ক্যালসিয়াম ও প্রোটিন। এই দুটি উপাদানই বলিরেখা দূর করে ত্বককে উজ্জ্বল রাখতে সক্ষম করে।

এ দুই উপাদান দিয়ে ফেইস প্যাক বানাতে যা যা লাগবে

  • ১/২ কাপ টকদই
  • ২ টেবিল চামচ হলুদের গুঁড়া

যেভাবে তৈরি করবেন 

  • টকদই এর সাথে হলুদের গুঁড়া ভালো করে মিশিয়ে নিন,
  • তারপর এটি স্কিনে ব্যবহার করুন,
  • ১৫ মিনিট পর শুকিয়ে গেলে ঠান্ডা পানি দিয়ে ভালোভাবে মুখ ধুয়ে ফেলুন।

Shop at Saajkonna.com

৪) বেসন ও মসুর ডাল

বেসন ত্বকের ময়লা ও সানটেন দূর করতে সাহায্য করে। আর মসুর ডাল ত্বকের প্রোটিনের ঘাটতি পূরণ করে ত্বকের বয়স কমায়। মসুর ডাল ত্বকের কালো দাগও দূর করে। এই দুটি উপাদানের প্যাকে ত্বক উজ্জ্বল হয়ে ওঠে।

বেসন ও মসুর ডাল দিয়ে প্যাক বানাতে যা যা লাগবে

  • ১/২ কাপ বেসন
  • ১/২ কাপ মসুরের ডাল
  • পরিমাণমতো পানি

যেভাবে তৈরি করবেন

  • মসুরের ডাল ভালো করে পেস্ট করুন। অথবা ব্লেন্ডারে গুঁড়া করে নিন।
  • মসুরের ডালের গুঁড়ার সাথে বেসন দিয়ে দিন।
  • পরিমাণমত পানি দিন। মসুরের ডাল এবং বেসনের পেস্ট স্কিনে ব্যবহার করুন।
  • শুকিয়ে গেলে ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

অসময়ে স্কিনে বলিরেখা কেউ চায় না। নিয়মিত স্কিনের ঘরোয়া যত্ন এবং প্রয়োজনীয় প্রোডাক্ট ব্যবহার করে রিংকেল, ফাইন লাইনস এর মতো সমস্যাগুলোর হাত থেকে রেহাই পাওয়া সম্ভব। অনলাইনে অথেনটিক স্কিন কেয়ার প্রোডাক্টস কিনতে পারেন সাজকন্যা.কম থেকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Main Menu